• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯

‘যাঁরা খ্যাতির শীর্ষে উঠেছেন তাঁদের পদবির দরকার হয়না’

‘যাঁরা খ্যাতির শীর্ষে উঠেছেন তাঁদের পদবির দরকার হয়না’

প্রতিকী ছবি

উক্তি ডেস্ক

‘চেনা বামুনের পইতা লাগেনা’ বহুল প্রচলিত একটি প্রবাদ। যার সাধারণ অর্থ- গুণী মানুষ, কর্মঠ মানুষ, জননন্দিত মানুষকে চিনতে বিশেষ কিছুর প্রয়োজন পড়ে না। যে মানুষ নন্দিত, যিনি পরোপকারী ও সেবক, সেই মানুষের বিশেষ পরিচয় এমনিতেই সৃষ্টি হয়ে যায়। মানুষের কাজ যখন সৃষ্টিশীল, মানবিক ও কল্যাণকর হয়, তখনই একজন মানুষ খ্যাতি অর্জন করে। মানুষ আজীবন বেঁচে থাকে না। মানুষ বেঁচে থাকে তার কর্মের মাঝে।

জনপ্রিয় বাঙালি কবি, সাহিত্যিক, লেখক ও প্রাবন্ধিক রাজশেখর বসু বলেছেন-‘যাঁরা খ্যাতির শীর্ষে উঠেছেন তাঁদের পদবির দরকার হয়না’।

মহাভারতের দ্বিতীয় খন্ডের জনক রাজশেখর বসুর এই উক্তির তাৎপর্য অত্যন্ত গভীর। তিনি মূলত বুঝাতে চেয়েছেন, যেসকল ব্যক্তি তাদের কর্মগুণ, সৃজনশীল মানবিক ও কল্যাণকর কর্ম দ্বারা খ্যাতি অর্জন করেছেন, তাদের আর বিশেষ পরিচয় দরকার নেই।

প্রকৃত পক্ষে খ্যাতিমান ব্যক্তিরা কখনোই পদ-পদবি বা পুরস্কারের জন্য কাজ করেন না। যেসকল মানুষ নিঃস্বার্থে মানুষের জন্য, সমাজের জন্য ও মানবতার জন্য কাজ করেন, তারাই কেবল খ্যাতি লাভ করেন। পৃথিবীতে যুগে যুগে বহু মানুষ খ্যাতি অর্জন করেছেন। নিজের কর্মগুণ ও কর্মফলের প্রভাবেই মানুষ খ্যাতিমান হয়। আবার কেউ কুখ্যাত হয়।

কাজেই যিনি ব্যক্তিগত জীবনে খ্যাতি অর্জন করেছেন, তিনি কখনোই পদ-পদবির মোহে পড়েন না। এ ধরণের মানুষ সব সময় পদবির চেয়ে পরিশ্রমকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। তাদের কাছে কল্যাণকর কাজের চেয়ে স্বীকৃতির মূল্য খুবই কম। স্বীকৃতির জন্য খ্যাতিমানরা কোনো কাজ করেন না।

২৩ জুন ২০২২, ১২:০৩পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।