• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯

ইউক্রেনে অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, কিয়েভ ছাড়ছে রুশ বাহিনী

ইউক্রেনে অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, কিয়েভ ছাড়ছে রুশ বাহিনী

ছবি- সংগৃহিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

রাশিয়ার আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ইউক্রেনে প্রায় ৬৩ বিলিয়ন ডলারের অবকাঠামোগত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছে কিয়েভ স্কুল অব ইকোনোমিকস। এদিকে কিয়েভের নিয়ন্ত্রণ নিতে ব্যর্থ হয়ে পিছু হটছে রুশ বাহিনী। তারা কিয়েভ থেকে সরে যাচ্ছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন।

বিবিসির খবলে বলা হয়েছে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার হামলা শুরু হওয়ার পর ইউক্রেনে ৩৭৮টি স্কুল, ৯২টি ফ্যাক্টরি ও গুদামসহ কমপক্ষে ৪ হাজার ৪৩১টি আবাসিক ভবনে ক্ষতি, ধ্বংস বা লুটের ঘটনা ঘটেছে।

এ ছাড়া ১২টি বিমানবন্দর ও ৭টি তাপ বা জলবিদ্যুৎ বিদ্যুৎকেন্দ্র ধ্বংস, ক্ষতি বা ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছে।

এদিকে শনিবার ইউক্রেনের সম্প্রদায় ও আঞ্চলিক উন্নয়নমন্ত্রী আলেক্সি চেরনিশভ দাবি করেন, রাশিয়া ইউক্রেনে প্রায় চার হাজার ৫০০ আবাসিক ভবন, ১০০ কোম্পানি ভবন, ৪০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং ১৫০ হাসপাতাল ধ্বংস করেছে।

অলেক্সি চেরনিশভ বলেন, যুদ্ধ শেষ না হওয়া পর্যন্ত ক্ষতির সঠিক পরিমাণ জানা যাবে না। ইউক্রেনের ক্ষতির পরিমাণ কয়েক বিলিয়ন মার্কিন ডলারে পৌঁছেছে। এর পরিমাণ প্রতিদিন বাড়ছে।

বিবিসির অন্য এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিয়েভ দখল করতে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতি মুখে পড়েছে রুশ বাহিনী। আর এ কারণে কিয়েভ অঞ্চল থেকে রাশিয়া তার সেনাদের সরিয়ে নিতে বাধ্য হচ্ছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন। ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর জেনারেল স্টাফ এ দাবি করেছেন।

যুদ্ধের হালনাগাদ তথ্যে জেনারেল স্টাফ জানান, রাশিয়ার সেনাবাহিনীর দুই ব্যাটালিয়ন কৌশলগত দলকে বেলারুশে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ ইউনিটগুলো ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছে। এ ছাড়া ইউক্রেনে প্রবেশ করা রুশ ইউনিটগুলোর ‘তীব্রতাও উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক পূর্বাভাসে বলা হয়, রাশিয়া কৃষ্ণসাগর উপকূলে নৌ-অবরোধের মাধ্যমে কার্যকরভাবে ইউক্রেনকে আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক বাণিজ্য থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে।

২৮ মার্চ ২০২২, ০৩:৩৭পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।