• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

গরমে শিশুর বাড়তি যত্নে যা করবেন

গরমে শিশুর বাড়তি যত্নে যা করবেন

প্রতিকী ছবি

ফিচার ডেস্ক

গ্রীষ্মের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে তীব্র দাবদাহ শুরু হবে দেশে। প্রতি বছর প্রচণ্ড গরমে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠে জনজীবন। গরমে প্রশান্তির জন্য আমরা নানা রকম উপায় অবলম্বন করে থাকি। গোসল করা, পানি পান করা, বাতাস নেয়াসহ নানা ভাবে আমরা গরমে প্রশান্তি নিয়ে থাকি। গরমে শিশুদের জন্যও বাড়তি যত্নের প্রয়োজন। কারণ, গরমে শিশুদের অসস্তিবোধ অনেক বেড়ে যায়। যদিও শিশুরা তা প্রকাশ করতে পারে না।

অতিরিক্ত গরমে শিশু বমি, জ্বর, ঠাণ্ডাজনিত কাঁশি, খোশপাঁচড়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে। যে কারণে, শিশুকে সুস্থ রাখতে হলে গরমে বিশেষ কিছু যত্ন নিতেই হবে।

জনপ্রিয় ওয়েব জার্নাল প্যারেন্টিং ও হেলথ লাইনে প্রকাশিত নিবন্ধে গরমের শিশুর যত্ন নিতে পাঁচটি বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। সেগুলো হলো-

গোসল করানো

গরমে শিশুকে সুস্থ রাখতে গোসলের বিকল্প নেই। যেদিন গরম বেশি অনুভূত হবে, প্রয়োজনে সেদিন শিশুকে দুই বার গোসল করানো যেতে পারে। তবে খেয়াল রাখতে হবে যে, গোসলের পরে শিশুর দেহ যেন দ্রুত সুতি কাপড় দিয়ে মুছে দেয়া হয়। গোসলের পানি শিশুর দেহে বাতাসে শুকিয়ে দিলে শিশুর ঠাণ্ডা লাগতে পারে। কাজেই গোসলের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

শিশুর দেহ শীতল ও সুষ্ক রাখুন

প্রচন্ড গরমে শিশুর দেহ শীতল ও সুষ্ক রাখা জরুরি। শিশুর দেহ গরমের দিনে শীতল রাখতে দিনে অন্তত দুই বার মাথাসহ শরীর ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে দিন। সুতির গামছা হলে সবচেয়ে ভালো হয়।

পানি পান করান

শিশুর শরীরে পানির ঘাটতি মেটাতে গরমের দিনে কিছুক্ষণ পরপর নিরাপদ বিশুদ্ধ পানি পান করানো উচিত। এ ছাড়া ডাবের পানি, তাজা ফলের শরবত খাওয়ানো যেতে পারে। তবে কোনো ভাবেই শিশুর সরবতে বেশি চিনি ব্যবহার করবেন না। শিশুকে গরমের দিনে মধু খাওয়াবেন না। শিশুকে গরমের দিনে বেশি বেশি মায়ের বুকের দুধ পান করান।

শিশুর ঘর শীতল রাখুন

গরমের দিনে শিশুর বিছানা ও শোবার জায়গা শীতল ও সুষ্ক রাখার চেষ্টা করুন। শিশুর শোবার ঘরে যেন বাতাস প্রবেশ করতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখুন। শিশুর বিছানা নিয়মিত পরিষ্কার করুন। বালিশ ও শিশুর কাথা কাপড় রোদে শুকিয়ে ঘরে তুলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবহার করবেন না। শিশুর পরিধেয় কাপড় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখুন।

শিশুর খাওয়ায় জবরদস্তি ‘না’

গরমের দিনে শিশুকে খাবার খাওয়ানোর সময় জবরদস্তি করা চলবে না। শিশুকে খাওয়ানোর সময় জোর জবরদস্তি করলে শিশুর মানসিক ক্ষতি হয়। জোর করে খাওয়ানোর ফলে শিশুর দেহে অজীর্ণ ভাব হয়। গরমের দিনে এই অসস্তি আরও বেড়ে যায়।

শিশুর কাপড় হবে ঢিলেঢালা

গরমে শিশুকে ঢিলেঢালা ও পাতলা সুতির কাপড় পরাতে হবে। ঘেমে গেলে দ্রুত শরীর মুছে দিতে হবে। সুতি ও হালকা-পাতলা গেঞ্জি বা এ জাতীয় কাপড় শিশুর জন্য সবচেয়ে উপযোগী। শিশুর বালিশের ওপর সুতির তোয়ালে বিছিয়ে রাখুন। এতে করে শিশু ঘামলেও সেই ঘাম তোয়ালে শুষে নিতে পারবে।

খোলা পানি থেকে শিশুকে দূরে রাখুন

গরমের সময় শিশু পানি নিয়ে খেলতে চায়। অধিকাংশ শিশুই খোলা পানি, ধুলাবালি ও বালতিতে পানি দেখলে খেলতে চায়। শিশুকে খোলা পানি ও ধুলাবালি নিয়ে খেলতে দিবেন না। পানি নিয়ে খেললে শিশুর ঠাণ্ডা লেগে যেতে পারে। এ ছাড়া গরমের দিনে শিশু ধুলাবালিতে খেললে চুলকানি বা শরীরের ঘামাচি ও অন্যান্য চর্মরোগ হতে পারে।

 

তথ্যসূত্র: হেলথ লাইন ও প্যারেন্টিং।

২৯ মার্চ ২০২৩, ০৬:০৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।