• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

আইসক্রিম খাওয়ার ভয়াবহ ক্ষতি

আইসক্রিম খাওয়ার ভয়াবহ ক্ষতি

প্রতিকী ছবি

ফিচার ডেস্ক

গরমে আরাম পেতে আইসক্রিমের জুড়ি নেই। আইসক্রিম এমনকি একটি খাবার, যা সব বয়সের মানুষের কাছেই প্রিয়। মজাদার স্বাদ ও বাহারি আকৃতির আইসক্রিম এখন বাজারে পাওয়া যায়। আইসক্রিম সাময়িক স্বস্তি দিলেও দীর্ঘমেয়াদে এটি আমাদের শরীরের ক্ষতি করে।

রয়টার্স এবং বেশ কিছু ওয়েব জার্নালে আইসক্রিমের ক্ষতিকর দিক নিয়ে বিভিন্ন সময়ে নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। নিবন্ধগুলিতে আইসক্রিমের স্বাস্থ্যকর বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

আইসক্রিম কি স্বাস্থ্যকর?

রয়টার্স বলছে, আইসক্রিমে উচ্চ মাত্রায় শর্করা ও চর্বি থাকে। যা মোটেই স্বাস্থ্যকর নয়। চটকদার স্বাদ হলেও আইসক্রিম শরীরে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া তৈরি করে। এ ছাড়া নিম্নমানের আইসক্রিম কেবলই রং ও চিনির মিশ্রণ ছাড়া আর কিছুই না।

হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়

আইসক্রিমের ভালো গুণ প্রায় নেই বললেই চলে। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট, সুগার ও কিছু অ্যাডিটিভস। এই সকল উপাদানগুলি কিন্তু সহজেই কিছু শারীরিক সমস্যা তৈরি করতে পারে। এটি দেহে কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে হৃদরোগের ঝুঁকি তৈরি করে।

ব্লাড সুগার বাড়িয়ে দেয়

আইসক্রিমে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে চিনি বা কৃত্রিম সুগার ব্যবহার করা হয়। আইসক্রিম খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মানবদেহের রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে, আইসক্রিম খেলে হঠাৎ করেই শরীরে সুগার বেড়ে যায়। যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

ওজন বাড়ায়

যারা ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছেন, তারা আইসক্রিমের ধারেকাছেও যাবেন না। স্থুলতা বা ওবেসিটিতে আক্রান্ত হওয়ার হার ক্রমেই বাড়ছে। দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাসে আইসক্রিম থাকলে তা আজই বাদ দিন। আইসক্রিম ওজন দ্রুত বাড়িয়ে দেয়। ফলে শরীরে অন্যান্য অসুস্থতাও বেড়ে যায়।

দাঁত নষ্ট করে

আইসক্রিম দাঁতের জন্য ‘আতঙ্ক’। এতে থাকা সুগার দাঁতের মাঝে ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বাড়িয়ে দেয়। ফলে, দাঁত ও মাড়ির ক্ষয় বৃদ্ধি পায়। এ ছাড়া দাঁত শিরশির করা বা সেনসিটিভিটি বেড়ে যায়। সুস্থ দাঁত ও মাড়ি পেতে চাইলে আজই আইসক্রিম খাওয়া ছাড়ুন।

 

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া।

১১ জুলাই ২০২৩, ০৯:২৪পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।