• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শুধু ক্লান্ত লাগে? বিপদের কারণ জেনে নিন

শুধু ক্লান্ত লাগে? বিপদের কারণ জেনে নিন

প্রতিকী ছবি

ফিচার ডেস্ক

এমন অনেকেই আছেন, আপাতদৃষ্টিতে যাদের শরীর দেখে অসুস্থতা বুঝার উপায় নেই। কিছু মানুষ আছেন, যারা সারাদিন ক্লান্ত বোধ করেন। কেউ কেউ এটিকে সমস্যা মনে করেন, আবার কেউ এটিকে পাত্তা দেন না। গবেষণা বলছে, ক্লান্ত বোধ করার অন্যতম কারণ ‘রাতে পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়া’। বৃটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য জরিপ অনুসারে, প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি রাতে সাত থেকে নয় ঘণ্টা ঘুমানো উচিত।

তবে ক্লান্ত অনুভব করার আরও বেশ কিছু কারণ রয়েছে। সেই কারণগুলো সম্পর্কে জানার পাশাপাশি সচেতন হওয়াও জরুরি। দেখে নেয়া যাক কারণগুলি-

স্লিপ অ্যাপনিয়া

স্লিপ অ্যাপনিয়া হল একটি চিকিৎসা অবস্থা। কিছু চিকিৎসা চলাকালে ওষুধের প্রতিক্রিয়ায় আপনার ঘুম কম হতে পারে। অথবা ঘুমের সময় মুহূর্তের মধ্যে শ্বাস বন্ধ ভাব হতে পারে। বিশেষ করে, দিনের বেলা ঘুমালে এটি বেশি হয়। শরীর অতিরিক্ত ক্লান্ত হওয়ার জন্য দিনের ঘুম দায়ী। স্লিপ অ্যাপনিয়ার লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে- শ্বাস প্রশ্বাস থেমে যাওয়া বা বাধাপ্রাপ্ত হওয়া; হাঁসফাঁস ভাব হওয়া, নাক ডাকা এবং ঘুমের মধ্যে জোরে আওয়াজ করা।

অ্যানিমিয়া বা রক্তস্বল্পতা

আপনার যদি রক্তস্বল্পতা থাকে তবে আপনার শরীরে পর্যাপ্ত লোহিত রক্তকণিকার ঘাটতি হবে। এতে আপনি ক্লান্তি এবং দুর্বলতা অনুভব করবেন। অ্যানিমিয়া বিভিন্ন কারণে হতে পারে। সাধারণ কারণগুলির মধ্যে রয়েছে আয়রন বা ভিটামিন বি ১২ এর অভাব। কাজেই, ক্লান্তি ভাব দীর্ঘদিন ধরে হলে রক্ত পরীক্ষা করে চিকিৎসকের কাছে যান।

থাইরয়েড জটিলতা

থাইরয়েড গ্রন্থি জটিলতা আপনার শরীরকে সবসময় নিষ্ক্রিয় করে রাখে। এটি বেশি ক্লান্তি ভাব আনে। থাইরয়েড গ্রন্থির প্রধান কাজ হল হরমোন তৈরি করা, যে হরমন বিপাক নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। যাদের থাইরয়েড কম থাকে তাদের শরীরের বিপাক ক্রিয়া কমে যায়। ফলে অলসতার অনুভূতি হতে পারে।

ডায়াবেটিস

রক্তে উচ্চ মাত্রায় শর্করার উপস্থিতি বা ডায়াবেটিস দেহে ক্লান্তি ভাব তৈরি করে। ডায়াবেটিস রোগীদের দেহে পর্যাপ্ত ইনসুলিন তৈরি হয় না। ফলে শরীরে ইনসুলিনের কার্যকারিতা হ্রাস পায়। যে কারণে রক্তে অতিরিক্ত গ্লুকোজ জমে যায়। আর রক্তে গ্লুকোজ বেড়ে গেলে শরীর ঝিমিয়ে পড়ে বা ক্লান্তি ভাব চলে আসে। শরীর অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়ে।

বিভ্রান্ত লাইফস্টাইল

শরীরে ক্লান্তি ভাব তৈরি হওয়ার আরেকটি কারণ হলো ত্রুটিপূর্ণ বা অস্বাস্থ্যকর লাইফস্টাইল। দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায় যদি উচ্চ চিনি, প্রক্রিয়াজাত খাবার এবং অস্বাস্থ্যকর চর্বিযুক্ত খাবার রাখেন, তাহলে আপনি দ্রুত ক্লান্ত হওয়া রোগে আক্রান্ত হবেন। এসব খাবার শরীরে অবসাদ ডেকে আনে। এসব খাবার ছেড়ে তাজা ফল, মৌসুমি শাকসবজি, গোটা শস্য এবং মাছ খান।

পরামর্শ: দীর্ঘদিন ধরে শরীরের ক্লান্তিভাব দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হোন। শরীর ঝিমিয়ে পড়া বা অবসাদগ্রস্থ হওয়া মোটেও ভালো লক্ষণ নয়।

 

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া।

২২ জুন ২০২৩, ০৩:৪২পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।