• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

সতেজ শরীর পেতে কেন সবজিই সেরা

সতেজ শরীর পেতে কেন সবজিই সেরা

প্রতিকী ছবি

ফিচার ডেস্ক

আশ্বিনে প্রকৃতি সেঁজে ওঠে শরতের সেরা সাঁজে। শরতের পরেই হেমন্ত। কার্তিক-অগ্রহায়ণ দুই মাস হেমন্ত কাল। এই দুই মাসে দেশের ফসলি মাঠ নতুন সবজি, শাক আর বাহারি ফসলে ভরে যায়। শীতের সবজির পুরো যোগান হেমন্তের অবদান। শীতে সবজি সহজে পাওয়া যায়, দামও থাকে নাগালে। মূলত, আমাদের আলাপের বিষয় সবজি। সুস্থ শরীর পেতে হলে সতেজ সবজির বিকল্প নেই।

গবেষকরা বলছেন, নিয়মিত ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রোকলি, লাউ, গাজর, পালংশাক, মুলা, শিম, ঢেঁড়স, পেঁপেঁ, শালগম, টমেটো খাওয়া স্বাস্থ্যকর। পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ সবজি দেহে সতেজতা বজায় রাখে।

কেন খাবেন সবজি

জনপ্রিয় মার্কিন স্বাস্থ্য ও পুষ্টিবিষয়ক ওয়েবজার্নাল হেলথ লাইনে প্রকাশিত নিবন্ধে বলা হয়েছে, সবজি-

পানিশূন্যতা পূরণ করে: লাউ, শসা, পেঁপেঁ, চাল কুমড়া, মিষ্টি কুমড়া ও পুইশাকে প্রচুর জলীয় অংশ থাকে। তবে সবচেয়ে বেশি জলীয় অংশ সমৃদ্ধ সবজি লাউ। এটি দেহ ঠাণ্ডা রাখে। পাশাপাশি এসব সবজিতে অন্যান্য ভিটামিনস রয়েছে।

ত্বক উজ্জ্বল করে: গাজর, শসা, টমেটোতে রয়েছে বিটা ক্যারোটিন। এই সবজিগুলো দৃষ্টিশক্তি ও ত্বক উন্নত করে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে এসব সবজি ত্বকেও সরাসরি ব্যবহার করা যায়।

চুল ভালো রাখে: ভিটামিন-সি এবং ভিটামিন এ সমৃদ্ধ সবজি চুলের স্বাস্থ্য উন্নত করে। আর এরকম সবজির মধ্যে রয়েছে টমেটো, শসা ও শিম। ঠান্ডাজনিত রোগ সারাতেও টমেটো কার্যকরী।

ব্যথা সারায় পালংশাক: পালংশাকে প্রচুর পরিমাণে ফলিক অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম ও আয়রন রয়েছে। এসব উপাদান আর্থ্রাইটিস, অস্টিওপোরোসিসের ব্যথা রোধ করে। এ ছাড়া হৃদরোগ এবং কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধেও কার্যকরী এই সবজি।

আদর্শ সবজি ফুলকপি: এই সবজিতে রয়েছে পর্যাপ্ত ভিটামিন ‘এ’, ‘বি’ ও সি। রয়েছে আয়রন, ফসফরাস, পটাশিয়াম ও সালফারের মতো খনিজ উপাদান। ফুলকপি দেহে রক্ত তৈরিতে ভূমিকা রাখে। পাকস্থলীর ক্যান্সার প্রতিরোধেও ফুলকপি কার্যকরী।

হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় মুলা: মুলা প্রধানত শীতকালীন সবজি। মুলায় থাকা খনিজ উপাদান ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে। এতে থাকা বিটা-ক্যারোটিন হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

হজমশক্তি বাড়ায় বাঁধাকপি: উচ্চ পুষ্টিমান সম্পন্ন সবজি বাঁধাকপি। এতে থাকা ভিটামিন ‘সি’ ও ভিটামিন ‘ই’ এবং সালফার পাকস্থলীর শক্তি বৃদ্ধি করে। ফলে হজমশক্তি বাড়ে।

আমিষের বিকল্প শিম: উদ্ভিজ আমিষের উত্তম একটি উৎস শিম। এই সবজি ডায়রিয়ার প্রকোপ কমায় এবং রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।

 

তথ্যসূত্র: হেলথ লাইন।

১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৭:৩১পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।