• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ভিটামিন ডি এর সেরা উৎস

ভিটামিন ডি এর সেরা উৎস

প্রতিকী ছবি

ফিচার ডেস্ক

হাড় ক্ষয়, দাঁতের সুস্বাস্থ্য ও হাড়ের দুর্বলতা কমানোর জন্য ভিটামিন ডি এর গুরুত্ব অনেক। দেহে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি হলে পেশি দুর্বল হয়ে পড়ে। হাড় তার ক্ষমতা হারায়। যে কারণে, ভিটামিন ডি যেন শক্তিশালী বুস্টার। পুষ্টিবিদরা বলছেন, শরীরের ভিটামিন ডি-এর চাহিদা পূরণ করতে ও হাড়ের কার্যক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ কিছু খাবার আছে। আর খাবারের মাধ্যমে ভিটামিনের চাহিদা পূরণ করা সবচেয়ে নিরাপদ।

জনপ্রিয় মার্কিন স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবজার্নাল হেলথ লাইন ও হেলথ ডট কমে প্রকাশিত নিবন্ধে ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ কিছু খাবারের কথা বলা হয়েছে। যা হল-

ডিম: সবচেয়ে কম খরচে ভিটামিন ডি এর চাহিদা পূরণের উৎস হল ডিম। এটি অত্যন্ত পুষ্টিকর ও দ্রুত শক্তিবর্ধক একটি খাবার। তবে সপ্তাহে তিন/চারটির বেশি ডিম খাওয়া ঠিক নয়। এ ছাড়া ডিমের কুসুম খাওয়া বাদ দিবেন না। কারণ, কুসুমে সবচেয়ে বেশি ভিটামিন ডি থাকে।

মাশরুম: বর্তমানে মাশরুম অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। গবেষকরা বলছেন, দ্রুত ভিটামিন ডি এর চাদিহা পূরণ করে মাশরুম। এটি অত্যন্ত নিরাপদ ও প্রাকৃতিক একটি খাবার। প্রতি ১০০ গ্রাম মাশরুমে প্রায় ২৩০০ আইইউ ভিটামিন ডি থাকে।

দুধ: ভিটামিন ডি এর আদর্শ উৎস দুধ। এ ছাড়া দুগ্ধজাত অন্যান্য খাবারেও প্রচুর ভিটামিন ডি থাকে। দই, ছানা, মাখনেও ভিটামিন ডি থাকে পর্যাপ্ত।

মাছ: পুষ্টিবিদরা বলছেন, সবধরণের মাছেই ভিটামিন ডি রয়েছে। তবে সামুদ্রিক মাছে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড বেশি থাকে। যেই মাছে তেল বেশি, সেই মাছে ভিটামিন ডি বেশি। চিংড়ি, পাবদা, চিতল, কাতল, আইড়, বোয়ালসহ মলা-ঢ্যালা মাছে প্রচুর ভিটামিন ডি থাকে।

ডাল: গরিবের মাংস বলা হিসেবে খ্যাতি পেয়েছে ডাল। বাঙালির খাদ্যতালিকায় ডাল যেন থাকাই চায়। সবধরনের ডালে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন ডি। তাই, ভিটামিন ডি এর ঘাটতি পূরণের জন্য নিয়মিত ডাল খেতে পারেন।

পরার্মশ

যারা হৃদরোগ, কিডনী জটিলতা, উচ্চ রক্তচাপ ও অন্যান্য জটিল রোগে ভুগছেন, তারা উচ্চ শক্তি সম্পন্ন এসব খাবার খাওয়ার আগে আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

 

তথ্যসূত্র: হেলথ ডট কম।

১৯ আগস্ট ২০২৩, ০৭:৪৪পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।