• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

‘অ্যালোভেরা’ : সুস্বাস্থ্যের সেরা উপাদান

‘অ্যালোভেরা’ : সুস্বাস্থ্যের সেরা উপাদান

প্রতিকী ছবি

ফিচার ডেস্ক

ঘৃতকুমারী চেনেন? নাকি এই নামটি আজই শুনলেন? আচ্ছা, অ্যালোভেরা চেনেন তো? আপনি কি জানেন, অ্যালোভেরা আর ঘৃতকুমারী একই জিনিস। অ্যালোভেরা হাজারগুণে ভরা একটি প্রাকৃতিক উপাদান। এটি ভেষজ চিকিৎসাসহ নানা রোগ নিরাময়ে ব্যবহার হয়ে থাকে। এখন বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় বাণিজ্যিক ভিত্তিতে অ্যালোভেরা চাষ হচ্ছে।

প্রিয় পাঠক, বুঝতেই পারছেন আমাদের এই পর্বে অ্যালোভেরার গুণাগুণ নিয়ে অজানা কিছু তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। চলুন আর দেরি না করে দেখে নিই কি আছে এই পর্বে-

পরিচয়

অ্যালেভেরার বৈজ্ঞানিক নাম Aloe vera। বাংলায় একে বলে ঘৃতকুমারী। আর ইংরেজিতে একে বলা হয় Medicinal aloe, Burn plant। এটি একটি রসালো উদ্ভিদ। অ্যালোভেরা দেখতে কাঁটাওয়ালা ফণীমনসা বা ক্যাকটাসের মতো।

অ্যালোভেরার আদি নিবাস আফ্রিকার মরুভূমি অঞ্চল ও মাদাগাস্কার। ধারণা করা হয়, ৬ হাজার বছর আগে মিশরে প্রথম অ্যালোভেরার উৎপত্তি হয়। তখন থেকেই এটি ভেষজ চিকিৎসায় ব্যবহার হয়ে আসছে।

গুণাগুণ

অ্যালোভেরায় রয়েছে অন্তত ২০ রকমের খনিজ পদার্থ। যা মানবদেহের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। এতে রয়েছে ২২টি অ্যামাইনো অ্যাসিড। এছাড়া এতে রয়েছে পর্যাপ্ত ভিটামিন এ, ভিটামিন ই১, ভিটামিন ই২, ভিটামিন ই৬ এবং ভিটামিন ই১২।

উপকারিতা

হৃদরোগের ঝুঁকি কমে: অ্যালোভেরা আপনার হৃদযন্ত্র সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস পান করলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে: শরীরে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে অ্যালোভেরা জুস খুবই কার্যকরী। এটি দেহের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে। নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস পান করুন, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে: রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে অ্যালোভেরা অত্যন্ত কার্যকরী। এটি রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা স্বাভাবিক রাখে। ফলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে।

ওজন কমায়: যারা ওজন কমাতে চান, তারা নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস খেতে পারেন। এটি শরীরে জমে থাকা মেদ ঝরাতে কাজ করে। কারণ অ্যালোভেরায় রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লামেটারি উপাদান।

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে: গবেষকরা বলছেন, অ্যালোভেরায় রয়েছে অ্যালো ইমোডিন। যা স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

ব্যথা নিরাময়: মাংসপেশী ও হাড়ের জয়েন্টের ব্যথা নিরাময়ে অ্যালোভেরা খুবই কার্যকরী। অ্যালোভেরার জেল মাংসপেশী ও ব্যথাযুক্ত হাড়ের জয়েন্টে লাগালে ব্যথা নিরাময় হয়।

দাঁতের সুরক্ষা: অ্যালোভেরার জুস দাঁত এবং মাড়ির ব্যথা উপশমে টনিকের মতো কাজ করে। এছাড়া এটি দাঁতের ইনফেকশন দূর করে। নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস খেলে দাঁতের ক্ষয়রোধ হয়।

হজমশক্তি বৃদ্ধি করে: পুষ্টিবিদরা বলছেন, অন্ত্রের উপকারী ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধির মাধ্যমে অ্যালোভেরা প্রদাহ বৃদ্ধিকারী ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে। ফলে হজমশক্তি বৃদ্ধি পায়।

কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করে: অ্যালোভেরার জুসে রয়েছে অ্যামাইনো অ্যাসিড। যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সহায়তা করে। এছাড়া বুক জ্বালাপোড়া ও পেটের ব্যথা নিরাময় করে।

মুখের ঘা সারায়: এতে রয়েছে এমন কিছু উপকারী খনিজ ও ভিটামিন, যা মুখের ঘা নিরাময়ে খুবই কার্যকরী।

ত্বকের স্বাস্থ্য সুরক্ষা: সুপ্রাচীন কাল থেকে ত্বকের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অ্যালোভেরা ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এতে থাকা অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি উপাদান ত্বক উজ্জ্বল করে, ব্রণ ও মেসতা দূর করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির প্রাকৃতিক উপদানের মধ্যে অ্যালোভেরা অন্যতম। অ্যালোভেরার জুস শরীরের খারাপ টক্সিন বের করে দেয়। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

চুল সুন্দর করে: অ্যালোভেরায় এমন কিছু গুণাগুণ রয়েছে, যা চুল শক্তিশালী করে। এটি মাথায় সৃষ্ট দীর্ঘদিনের খুশকি সমস্যা দূর করে।

তথ্যসুত্র: উইকিপিডিয়া, কৃষি তথ্য সার্ভিস (বিডি) ও হেলথলাইন ডট কম

 

এবি/এসএন

২৮ আগস্ট ২০২১, ০৮:১০পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।